আজকের দিন তারিখ ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সম্পাদকীয় সুস্থ থাকতে হলে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে

সুস্থ থাকতে হলে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে


পোস্ট করেছেন: Dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: মে ২৫, ২০২১ , ১২:৪১ অপরাহ্ণ | বিভাগ: সম্পাদকীয়


করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে চলমান বিধিনিষেধের মেয়াদ আরো এক সপ্তাহ বাড়ানো হয়েছে। রবিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘সংক্রমণের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায়’ আগের সব বিধিনিষেধের ধারাবাহিকতায় নতুন শর্ত যুক্ত করে এর মেয়াদ ২৩ মে মধ্যরাত থেকে ৩০ মে মধ্যরাত পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। নতুন শর্তে বলা হয়েছে, পরিবহনে অবশ্যই যাত্রীসহ সবাইকে মাস্ক পরার পাশাপাশি সব স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। করোনা ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টটি মারাত্মক। ভারতকে নাস্তানাবুদ করেছে। এমতাবস্থায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা আমাদের জন্য জরুরি। চিকিৎসা বিশ্লেষকরা বলছেন, সামনে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ বিপর্যয় নামতে পারে। পোশাক কারখানা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও দোকানপাট, শপিংমল চালু রাখার কারণে সড়কে মানুষের চলাচল বেড়ে গেছে। আমরা বুঝতে পারছি, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেও পোশাক কারখানা, দোকানপাট খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত অর্থনীতির ক্ষতি এড়ানোর উদ্দেশ্যে। এর মধ্যে দূরপাল্লার গণপরিবহন, লঞ্চ ও ট্রেন চালু করা হলো। মাথায় রাখতে হবে বাংলাদেশে প্রাণঘাতী নভেল করোনা ভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্ত হয়েছে। ভারতের কোভিড পরিস্থিতি এখন এক প্রকার নিয়ন্ত্রণের বাইরে। পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যান্য দেশেও। বাংলাদেশেও ভারতীয় এ ধরন ব্যাপক সংক্রমণ ও প্রাণঘাতী রূপ নিলে দেশের সামাজিক বাস্তবতা ও অর্থনৈতিক ভবিষ্যৎ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে তা ভেবে আতঙ্কিত হতে হয়। সরকারের বিধিনিষেধের কারণে সংক্রমণ ও মৃত্যু কমছে। কিন্তু মানুষ সরকারি বিধিনিষেধ মানতে নারাজ। সমাজের শ্রমজীবী মানুষ সামাজিক দূরত্ব মানছে না বা না মানতে বাধ্য হচ্ছে মোটা দাগে পেটের দায়ে, জীবিকার চরিত্রগত কারণে সেটাও বিবেচনায় নেয়া জরুরি। আমাদের সামাজিক দূরত্ব মেনে না চলার অন্যতম কারণ আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না থাকা। অর্থনৈতিক সমস্যার চেয়েও বড় সমস্যা অসচেতনতা। নিজেরা যেমন সচেতন না তেমনিভাবে আরেকজনকে বিপদে ফেলছি। বারবার সরকার বলছে, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে হলে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। অপ্রয়োজনে বাইরে না যাওয়া, যতটা সম্ভব ঘরে থাকুন, নিজে সুস্থ থাকুন এবং দেশের মানুষকে সুস্থ রাখুন- করোনা প্রাদুর্ভাব ঠেকানোর এটাই হলো মূলমন্ত্র। আমরা বলব, নিজে সতর্ক না হলে, সচেতন না হলে ভারতীয় এ ধরন দ্রুত ছড়িয়ে পড়বে। ভারতের মৃত্যুর মিছিল দেখে তো আমরা শিক্ষা নিতে পারি? বিজ্ঞান অসহায়ের মতো লক্ষ করছে হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু। এ মৃত্যুর মিছিল কোথায় গিয়ে শেষ হবে, তা আমরা এ মুহূর্তে বলতে পারব না। জীবন রক্ষা ও অর্থনীতির ক্ষতি ন্যূনতম মাত্রায় রাখা- এই উভয় কূল রক্ষার চ্যালেঞ্জে সবাইকে বিচক্ষণতা ও দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে। আসুন, আমরা সবাই মিলে সচেতন হই, অন্যদেরও সচেতন করে গড়ে তুলি।