আজকের দিন তারিখ ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থ ও বাণিজ্য মার্জিন ঋণ কার্যকর করার সময় বাড়ছে আরো ৬ মাস

মার্জিন ঋণ কার্যকর করার সময় বাড়ছে আরো ৬ মাস


পোস্ট করেছেন: Dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ৩১, ২০২১ , ১১:২০ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: অর্থ ও বাণিজ্য


দিনের শেষে প্রতিবেদক : পুঁজিবাজারে মার্জিন ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিএমবিএ) মার্জিন ঋণের সুদ হার নির্দেশনা কার্যকর করার আরও এক বছর সময় চেয়েছিল। এর প্রেক্ষিতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) মার্জিন ঋণ কার্যকর করার সময় আরো ৬ মাস বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিএমবিএ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
বিএমবিএ সূত্র মতে, গত ২৪ মার্চ স্বল্প সুদে মার্জিন ঋণের কার্যকরের বিষয়ে এক বছর সময় চেয়ে বিএসইসসিতে আবেদন করেছে বিএমবিএ। সংগঠনটি মনে করে বর্তমানে তারা উচ্চ হারে ঋণ গ্রহণ করে স্বল্প সুদে গ্রাহকদের ঋণ দিতে পারবে না। যেই সময়ে তারা স্বল্প সুদে ঋণ পাবে, ওই সময় এটি কার্যকর করতে পারবে। তাদের আবেদনের প্রেক্ষিত ৬ মাস সময় বাড়ানো হচ্ছে। এখন আর জুলাই মাসে কার্যকর হচ্ছে না। আগামী ডিসেম্বর মাসে এ নির্দেশনা কার্যকর হবে। এ বিষয়ে বিএমবিএ সভাপতি মো. ছায়েদুর রহমান সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, পুঁজিবাজার ও বিনিয়োগকারীদের স্বার্থের কথা বিবেচনা করে বিএসইসির নির্দেশনাটি আমরা কার্যকর করবো। তবে এর জন্য আমাদের সময় প্রয়োজন। স্বল্প সুদে আমরা ঋণ পেলেই এটি কার্যকর করতে পারবো। তিনি বলেন, আমরা পুঁজিবাজারের স্বার্থে এক বছর সময় চেয়েছিলাম। বিএসইসি তা ৬ মাস বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগে চলতি বছরের প্রথম দিকে বিএসইসি একটি নির্দেশনা জারি করে মার্জিন ঋণের সুদের হার হবে সর্বোচ্চ ১২ শতাংশ। এটি ১ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর করার নির্দেশ দেওয়া হয়। পারে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ৭ মার্চ একটি নির্দেশনায় বলা হয় আগামী জুলাই থেকে কার্যকর করার জন্য।
বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক মো: আনোয়ারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত নির্দেশনায় বলা হয়, মার্চেন্ট ব্যাংকা (পোর্টফোলিও ম্যানেজার) কর্তৃক প্রদত্ত মার্জিন ঋণের উপর গ্রাহকের নিটক হতে সুদ বা মুনাফা আদায়ের ক্ষেত্রে কস্ট অব ফান্ডের সাথে যে সর্বোচ্চ ৩ শতাংশ স্প্রেড আদায় করতে পারবে তা আগামী ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত এই নির্দেশনা বলবৎ থাকবে। এর আগে সর্বোচ্চ ৩ শতাংশ স্প্রেড আদায়ের বিষয়ে গত ১৪ জানুয়ারি একটি নির্দেশনা দিয়েছিল বিএসইসি। ওই নির্দেশনায় বলা হয়েছিল সর্বোচ্চ ৩ শতাংশ স্প্রেড আদায় ১ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হবে। কিন্তু ৭ মার্চ আরেকটি সাক্যুলার জারি করে বিএসইসি জানিয়েছে এই নির্দেশনা ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।