আজকের দিন তারিখ ১৩ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সারাবিশ্ব পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন: বুথফেরত সমীক্ষায় তৃণমূলের পাল্লা ভারী

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন: বুথফেরত সমীক্ষায় তৃণমূলের পাল্লা ভারী


পোস্ট করেছেন: Dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ৩০, ২০২১ , ১:৫৯ অপরাহ্ণ | বিভাগ: সারাবিশ্ব


দিনের শেষে ডেস্ক : পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের শেষ দফার ভোটের পর বুথফেরত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসের পাল্লা ভারী। গতকাল বৃহস্পতিবার শেষ হলো ২৯৪ আসনের আট দফার নির্বাচন। ওই নির্বাচনের ফল বেরোবে রোববার ২ মে।
গতকাল রাতেই ভারতের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম এবং সংস্থা এই নির্বাচন নিয়ে তাদের বুথফেরত সমীক্ষার আলাদা আলাদা রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। সেই সব বুথফেরত সমীক্ষায় মমতার তৃণমূল কংগ্রেসের জয়ের ইঙ্গিত দিয়েছে। আবার দু–একটি সংবাদমাধ্যম এবং সংস্থা বিজেপির জয়ের আভাস দিয়েছে। যদিও বিজেপি গতকালই জানিয়ে দিয়েছে, তারা মানেন না বুথফেরত সমীক্ষা। ফলাফলেই বোঝা যাবে, সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়েই এবার পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় আসছে বিজেপি। তবে বিজেপির এই যুক্তিকে মানছে না তৃণমূল। তারা বলছে, অধিকাংশ বুথফেরত সমীক্ষায়ই ইঙ্গিত দিয়েছে মমতার বিজয়ের। তৃণমূলও জানে এবার এই রাজ্যে ক্ষমতায়ই থাকছে তৃণমূল। মমতাই হবেন এই রাজ্যের তৃতীয়বারের মুখ্যমন্ত্রী। ১২টি সমীক্ষার রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, ছয়টি সংস্থা তৃণমূলের আর ছয়টি সংস্থা বিজেপির জয়ের ইঙ্গিত দিয়েছে। সি-ভোটার বলছে, তৃণমূল ১৫২ থেকে ১৬৪ আসন, বিজেপি ১০৯ থেকে ১২১ এবং কংগ্রেস-বামদল-আইএসএফ–এর গড়া সংযুক্ত মোর্চা ১৪ থেকে ২৫ আসন পেতে পারে। পি মার্কের হিসাবে, তৃণমূল পেতে পারে ১৫২ থেকে ১৭২, বিজেপি ১১২ থেকে ১৩২ এবং সংযুক্ত মোর্চা ১০ থেকে ২০টি আসন। টুডেজ চাণক্য বলছে, তৃণমূল ১৮০, বিজেপি ১০৮ এবং সংযুক্ত মোর্চা ৪টি আসন পেতে পারে। গ্রাউন্ড জিরোর মূল্যায়ন, তৃণমূল ১৫৭ থেকে ১৮৫, বিজেপি ৯৬ থেকে ১২৫ এবং সংযুক্ত মোর্চা ৮ থেকে ১৬ আসন দখল নিতে পারে। পোল স্ট্র্যাটের হিসাবে তৃণমূল পেতে পারে ১৪২ থেকে ১৫২, বিজেপি ১২৫ থেকে ১৩৫ এবং সংযুক্ত মোর্চা ১৬ থেকে ২৬ আসন। ইটি রিসার্চের হিসাব, তৃণমূল ১৬৪ ১৭৬ আসনে, বিজেপি: ১০৫ থেকে ১১৫ জয়ী হতে পারে। এ সংস্থা যুক্ত মোর্চাকে কোনো আসন দেয়নি। আর বিজেপিকে কারা জয়ের ইঙ্গিত দিয়েছে, ইন্ডিয়া টুডে। তাদের হিসাবে বিজেপি ১৩৪ থেকে ১৬০, তৃণমূল ১৩০ থেকে ১৫৬ এবং সংযুক্ত মোর্চা ৩ আসন পেতে পারে।
টাইমস নাউ ও পোল অব পোলসের হিসাবে বিজেপি: ১৪৪, তৃণমূল ১৩২ এবং সংযুক্ত মোর্চা ১২ আসন পেতে পারে। সিএনএক্স এবং রিপাবলিক টিভির হিসাব বলছে, বিজেপি ১৩৮ থেকে ১৪৮, তৃণমূল ১২৮ থেকে ১৩৮ এবং সংযুক্ত মোর্চা ১১ থেকে ২১ আসনে জয়ী হবে।
জন কি বাতের তথ্য, বিজেপির ঝুলিতে যেতে পারে ১৬২ থেকে ১৮৫, তৃণমূলের ১০৪ থেকে ২১ এবং সংযুক্ত মোর্চার ৯টি আসন। পিপলস পালসের উপাত্ত, বিজেপি ১৭৩ থেকে ১৯২, তৃণমূল ৬৪ থেকে ৮৮ এবং সংযুক্ত মোর্চা ৭ থেকে ১২ আসনে জিততে পারে। অ্যাক্সিস মাই ইন্ডিয়ার হিসাবেও জিতছে বিজেপি। তাদের হিসাবে দলটি ১৩৪ থেকে ১৬০, তৃণমূল ১৩০ ১৫৬, সংযুক্ত মোর্চা: ০-২ আসন। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, দেখা যাচ্ছে বিজেপি এগোচ্ছে। তৃণমূল পেছাচ্ছে। এই ট্রেন্ডই থাকবে। ফলাফলে মিরাকল হবে। ২০০–এর কাছাকাছি আসন পাবে বিজেপি। তৃণমূল নেতা ও কলকাতার সাবেক মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেছেন, ‘আমাদের দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে বাংলায় ক্ষমতায় আসছে। বুথফেরত সমীক্ষায় আমরা মানুষের মনোভাব জানতে পেরেছি। বিজেপি খুব বেশি হলে ৭০-৮০টি আসনে জিতবে।’
কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্য বলেছেন, ‘বেশির ভাগ সময়েই দেখা গেছে সমীক্ষা মেলে না। বিহারের সমীক্ষাও মেলেনি। যেসব ব্যক্তি এই সমীক্ষা করেন, তাঁদের যেমন গুরুত্ব আছে, আমাদের কর্মীদেরও আছে।’
বাম নেতা মহম্মদ সেলিম বলেছেন, ‘বুথফেরত সমীক্ষা নিয়ে গবেষণার বদলে করোনায় আক্রান্তদের কাছে ওষুধ পৌঁছে দেওয়ার কাজে ব্যস্ত রয়েছি। করপোরেটের এই ধরনের এক্সিট পোল নিয়ে আমরা মাথা ঘামাই না। তাই এখন করোনা রোগীদের সেবায় গুরুত্ব দিয়েছি।’
এ ছাড়া বিজেপির নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন, ‘আমাদেরও নিজস্ব সমীক্ষা হয়েছে। সেই সমীক্ষায় দেখা গেছে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির সরকার গঠিত হচ্ছে।’
আর তৃণমূল মুখপাত্র ও রাজ্যের বিদায়ী মন্ত্রী তাপস রায় বলেছেন, ‘কোনো হাড্ডাহাড্ডি লড়াই নেই। আমরাই জিতছি, সরকার গড়ছি। মমতাই হবেন এই রাজ্যের ফের মুখ্যমন্ত্রী।’