আজকের দিন তারিখ ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
স্পোর্টস, স্পোর্টস লীড শুরুর অপেক্ষায় কোপা আমেরিকার লড়াই

শুরুর অপেক্ষায় কোপা আমেরিকার লড়াই


পোস্ট করেছেন: admin | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২, ২০১৬ , ৯:১৩ অপরাহ্ণ | বিভাগ: স্পোর্টস,স্পোর্টস লীড


15কাগজ অনলাইন ডেস্ক: ২০১৪ সালেই হলো ব্রাজিল ফুটবল বিশ্বকাপ। এক বছর পর অর্থাৎ ২০১৫ সালে দক্ষিণ আমেরিকায় বসল কোপা আমেরিকা ফুটবল টুর্নামেন্ট। হিসাব মতে ২০১৯ সালে আবারো হওয়ার কথা কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট। তবে না, বাংলাদেশ সময় আগামী শনিবার ভোর থেকেই শুরু হবে এই টুর্নামেন্টের ময়দানী লড়াই। টুর্নামেন্টের শতবর্ষী পূর্তি উপলক্ষ্যেই বিশেষ কোপা ফুটবল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সকাল ৭টা ৩০ মিনিটে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্র ও কলম্বিয়ার মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে জমজমাট এই আসরের।

কোপা আমেরিকার প্রত্যেক আসর অনুষ্ঠিত হয় সাধারণত দক্ষিণ আমেরিকারই কোন একটি দেশে। তবে এবারই ব্যতিক্রম। বিশেষ কোপার এই শতবর্ষী আসরটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে দক্ষিণ আমেরিকার বাইরে। এই আসরের স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্র।

লড়াইটা হতে পারত মেসি বনাম নেইমারের। কিন্তু তা হচ্ছে না। আর্জেন্টনার হয়ে মেসি খেলতে পারলেও পারবেন না নেইমার। সেটা বার্সেলোনার আপত্তিতেই। ২৩ বছরের শিরোপা খরা কাটানোর মিশনে নামছে আর্জেন্টিনা। দলটির অধিনায়ক ও সেরা তারকা লিওনেল মেসি এমন প্রত্যয়ের কথাই জানিয়েছেন।

তবে নেইমারকে ছাড়াই শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশনে নামবে ব্রাজিল। একেতো নেইমার নেই, তার উপর চোটের কারণে একঝাঁক তারকা ফুটবলার পাচ্ছেন না ব্রাজিল কোচ কার্লোস দুঙ্গা। এ কারণে আসরে রেকর্ড সর্বোচ্চ পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের সাফল্য নিয়ে সংশয় জানিয়েছেন ফুটবল বিশেষজ্ঞরা।

২০১৪ সালে বিশ্বকাপ ও ২০১৫ সালে কোপা আমেরিকার ফাইনালে এসে হেরে যায় আর্জেন্টিনা। টানা দু’টি বড় আসরের ফাইনালে হারই শুধু নয়, আর্জেন্টিনা গত প্রায় দুই যুগ ধরে কোনো ট্রফি জিততে পারেনি। এসব হতাশা ভোলার আরও একটি উপলক্ষ্য পাচ্ছে লিওনেল মেসির দল। শতবর্ষী কোপা আমেরিকায় চ্যাম্পিয়ন হতে পারলে কিছুটা হলেও দুঃখ লাঘব হবে। আর এটি সম্ভব বলে মনে করছেন দলটির অধিনায়ক মেসি।

এ প্রসঙ্গে মেসি বলেন, ‘কোপা জয়ের জন্য আমরা নিজেদের সেরাটাই খেলবো। কারণ এটা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি আসর।’ আর্জেন্টাইন অধিনায়ক আরও বলেন, ‘দীর্ঘ সময় ধরে আর্জেন্টিনা কোন শিরোপা জয় করতে পারেনি। আর এই দলটিই গত বিশ্বকাপের ফাইনাল ও কোপা আসরের ফাইনাল খেলেছিলো। আমি মনে করি এবারের আসরের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো দল আমরা। বর্তমান ফিফা সেরা ফুটবলার বলেন, এটা কোপা আমেরিকার বিশেষ আসর। আর যুক্তরাষ্ট্রের মতো বিশেষ একটি দেশে এবারের আসর বসছে। যেখানে অসাধারণ কিছু স্টেডিয়াম আছে। আর সেখানে ফুটবলের প্রচুর দর্শকও আছে। নিজেদের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার এটা দারুণ একটি সুযোগ।’

অন্যদিকে ২০০৭ সালে দক্ষিণ আমেরিকার বিশ্বকাপ হিসেবে পরিচিত কোপা আমেরিকা ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ব্রাজিল। এরপর গত দুই আসরে সেমিফাইনালেও উঠতে ব্যর্থ হয়েছে পেলের দেশ। এবার তাই বিশেষ আসরে শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশন ৮ বারের কোপা আমেরিকা জয়ীদের।

বি গ্রুপে পড়েছে ব্রাজিল। যেখানে তাদের সঙ্গী ইকুয়েডর, হাইতি ও পেরু। অন্যদিকে ডি গ্রুপে আর্জেন্টিনার সঙ্গে রয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলি, পানামা ও বলিভিয়া। লুইস ‍সুয়ারেজের উরুগুয়ে রয়েছে সি গ্রুপে। বাকি তিন প্রতিপক্ষ মেক্সিকো, ভেনিজুয়েলা ও জ্যামাইকা। এ গ্রুপে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গী কলম্বিয়া, কোস্টারিকা ও প্যারাগুয়ে।

ব্রাজিলের প্রথম ম্যাচ চার জুন। প্রতিপক্ষ ইকুয়েডর। তবে আর্জেন্টিনা মাঠে নামবে ছয় জুন। যেখানে তাদের প্রথম ম্যাচেই মোকাবেলা করতে হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলিকে। গত বছর চিলির মাঠেই টাইব্রেকারে হেরে শিরোপা বিসর্জন দিতে হয়েছিল মেসিদের। আগামী ২৬ জুন অনুষ্ঠিত হবে এই টুর্নামেন্টের ফাইনাল।