আজকের দিন তারিখ ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সারাবিশ্ব, সারাবিশ্ব লীড যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন নিয়ে চীনের ব্যবসা

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন নিয়ে চীনের ব্যবসা


পোস্ট করেছেন: admin | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ১, ২০১৬ , ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: সারাবিশ্ব,সারাবিশ্ব লীড


hillary-trumpঅনলাইন ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে চারদিকে চরম উত্তাপ ছড়াচ্ছে। আর এটা কেবলমাত্র মার্কিন মুলুকেই আটকে আছে তা নয় বরং বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এই নির্বাচন নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছে ।

এখনো চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষণা হয়নি কারোরই। কিন্তু তারপরেও বসে নেই চীনের ব্যবসায়ীরা। দেশটির প্লাস্টিক সামগ্রী উৎপাদনকারী কিছু প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যেই সম্ভাব্য দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর মুখোশ বানাতে শুরু করেছে। খবর বিবিসির।

এদিকে, রিপাবলিকান দলের সম্ভাব্য প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প মন্তব্য করেছেন চীনা কোম্পানিগুলো তার দেশের মুনাফা হাতিয়ে নিচ্ছে। কিন্তু চীনা কোম্পানীগুলোর দাবী তারা ট্রাম্পেরই কয়েক মিলিয়ন রাবারের মুখোশ তৈরি করেছে। এদের মধ্যে সবচেয়ে বড় অর্ডারটি পেয়েছে জিনহুয়া পার্টটাইম নামের একটিপ্রতিষ্ঠান।

ওই প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী জ্যাকি চেন বলছেন, তার প্রতিষ্ঠানে রিপাবলিকান দলের সম্ভাব্য প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের কয়েক মিলিয়ন রাবারের মুখোশ তৈরি করা হয়েছে।

এ সম্পর্কে তিনি বলেন, আমারতো হিলারি ক্লিনটনের চেয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পকেই বেশি ভালো লাগে। যদিও দুই দলের কাছ থেকেই আমি মুখোশের প্রায় সমান সংখ্যক অর্ডার পেয়েছি। নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরুর আগেই তাদের তৈরি পণ্য মার্কিন মুলুকে পৌঁছে যাবে। আর সে লক্ষ্যে তুমুল তোড়জোড় চলছে।

তবে কিছু ক্ষেত্রে অর্ডারের চেয়ে বেশি মুখোশ বানিয়েছে তারা। আর এর একটা বড় অংশই হচ্ছে ট্রাম্পের।

যুক্তরাষ্ট্রে কেবল প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নয় বরং যেকোনো উৎসব পার্বণ কিংবা প্রতিবাদ বিক্ষোভেও রাবার মুখোশের ব্যবহার বেশ জনপ্রিয়।

বিখ্যাত যেকোনো ব্যক্তিত্ব, সিনেমার চরিত্র অথবা কোন বড় প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্বের মুখোশই বাজার খুঁজলে পাওয়া যায়। আর এগুলোর সবই আসে চীন থেকে। ফলে নির্বাচনকে সামনে রেখে তার প্রধান কুশীলবদের মুখোশের অর্ডার বাড়বে এতে আশ্চর্য হবার কিছু নেই।

এদিকে, পার্টি হাউজ নামে অন্য একটি প্রতিষ্ঠান মূলত হিলারি ক্লিনটনের মুখোশ বানাচ্ছে। আর সেক্ষেত্রে ডেমোক্রেটিক দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর মুখের খুঁটিনাটি লক্ষ্য রাখতে হচ্ছে তাদের।