আজকের দিন তারিখ ২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয় পূর্ণাঙ্গ রায়ের অপেক্ষায় সাংবাদিক মন্টুর পরিবার

পূর্ণাঙ্গ রায়ের অপেক্ষায় সাংবাদিক মন্টুর পরিবার


পোস্ট করেছেন: admin | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ৬, ২০১৬ , ১০:৫৩ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: জাতীয়


montuকাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: পেপসি কোলার গাড়িচাপায় দৈনিক সংবাদের বার্তা সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন মন্টু নিহত হওয়ার ২৬ বছর পর ১ কোটি ৬৯ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের চূড়ান্ত রায় পেয়েছেন তার পরিবার। এখন এ রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশের অপেক্ষায় তার স্বজনেরা।

পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পরই সংশ্লিষ্ট কোম্পানিকে ১ কোটি ৬৯ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে সাংবাদিক মন্টুর পরিবারকে। আর খুব শিগগিরই এ রায় প্রকাশ হবে বলে আশা করছেন পরিবারটির আইনজীবী খলিলুর রহমান।

পেছন ফিরে দেখা
১৯৮৯ সালের ০৩ ডিসেম্বর পেপসি কোলার একটি ট্রাক রাজধানীর কাকরাইলের আনন্দ ভবনের সামনে মোজাম্মেল হোসেন মন্টুকে চাপা দেয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৬ ডিসেম্বর তার মৃত্যু হয়।

১৯৯১ সালের ১ জানুয়ারি নিহত মোজাম্মেল হোসেন মন্টুর স্ত্রী রওশন আখতার ক্ষতিপূরণ চেয়ে ঢাকা তৃতীয় সাব জজ আদালতে মামলা করেন।

বিচারিক আদালতের রায়
মামলা দায়েরের প্রায় এক যুগ পর ২০০৫ সালের ২০ মার্চ বিচারিক আদালত মন্টুর পরিবারকে ৩ কোটি ৫২ লাখ ৯৭ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশনা দিয়ে রায় দেন।

এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে পেপসি কোলা।

হাইকোর্টের রায়
বিচারিক আদালতের পর হাইকোর্টে আপিল মামলার বিচারে কেটে গেছে আরো ৫ বছর।

২০১০ সালে বিচারিক আদালতের দেওয়া ক্ষতিপূরণের টাকা কমিয়ে ২ কোটি ১ লাখ ৪৭ হাজার টাকা নির্ধারণ করে রায় দেন হাইকোর্ট।

আপিল বিভাগ
হাইকোর্টের ওই রায়ের বিরুদ্ধেও পেপসি কোলা আপিল করে। এবার আপিল বিভাগে কেটে গেছে আরও ৪ বছর। ২০১৪ সালের ২০ জুলাই পেপসি কোলার আপিল নিষ্পত্তি করে রায় দেন সর্বোচ্চ আদালত।

তবে মন্টুর পরিবারকে কী পরিমাণ ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, তা পূর্ণাঙ্গ রায়ে পুনর্নির্ধারণ করে দেবেন বলে সে সময় জানিয়েছিলেন আপিল বিভাগ।

এরপর পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়নি। কিন্তু গত ১০ এপ্রিল ও ১৩ এপ্রিল আপিল আবেদনটি পুনরায় শুনানির জন্য কার্যতালিকায় আসে। ১৩ এপ্রিল আপিল বিভাগ আবেদনটির নিষ্পত্তি করে দিয়ে এক কোটি ৬৯ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে চূড়ান্ত রায় দেন।

আইনজীবীর বক্তব্য
মন্টুর পরিবারের আইনজীবী খলিলুর রহমান বলেন, আপিল বিভাগ পুনঃশুনানি শেষে আপিল বিভাগ ক্ষতিপূরণের অর্থ নির্ধারণ ও মামলাটির নিষ্পত্তি (ডিসপোজড অফ) করে গত ১৩ এপ্রিল রায় দেন।

‘এখনও সেই রায়ের পূ্র্ণাঙ্গ অনুলিপি বের হয়নি। আশা করছি, খুব শিগগিরই রায়টি বের হবে’।

পরিবারের অপেক্ষা
সাংবাদিক মন্টুর স্ত্রী রওশন আখতার বলেন, ‘নানা চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে দীর্ঘ দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে এ মামলা পরিচালনা করে আসছি। এই দীর্ঘ সময়ের ধৈর্যের ফসল এ রায়। আমরা এখনো এ রায়ের পূর্ণাঙ্গ সার্টিফায়েড কপি পাইনি। অপেক্ষায় আছি সার্টিফায়েড কপি কখন পাবো’।

মোজাম্মেল হোসেন মন্টু ১৯৪৫ সালের ১৫ জানুয়ারি মুন্সীগঞ্জ জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। কবি, সাহিত্যিক ও সাংবাদিক হিসেবে সফল জীবনের অধিকারী মন্টু ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভের পর সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে নেন।

১৯৬৮ সালে তিনি দৈনিক সংবাদে সহ সম্পাদক হিসেবে যোগ দিয়ে সাংবাদিকতা জীবন শুরু করেন। ১৯৮৯ সালের ১৬ ডিসেম্বর মৃত্যু পর্যন্ত সংবাদের বার্তা সম্পাদক হিসেবে কর্মরত ছিলেন তিনি।