আজকের দিন তারিখ ২৬শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১২ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয় পুলিশ-আইনজীবী সংঘর্ষ, আহত ১৫

পুলিশ-আইনজীবী সংঘর্ষ, আহত ১৫


পোস্ট করেছেন: admin | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২, ২০১৬ , ৯:১১ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জাতীয়


14কাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে আটক করাকে কেন্দ্র করে শরীয়তপুর আদালত চত্বরে পুলিশ-আইনজীবী সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষে পুলিশ ও আইনজীবীসহ মোট ১৫জন আহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শরীয়তপুর জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যালয়ের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে ৭ আইনজীবীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় সহকারী পুলিশ সুপারসহ ১০ জন পুলিশকে আসামি করে কোর্টে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জাজিরা থানার একটি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত এবং একটি মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভূক্ত আসামি জাজিরা থানার পশ্চিম সেনেরচর গ্রামের শাহজাহান ঢালীর ছেলে মো. শাহেন শাহ ঢালী আদালতে আত্মসমর্পন করতে গেলে ডিবি পুলিশের একটি দল তাকে আটকের চেষ্টা করে। আইনজীবীর চেম্বারের সামনে থেকে আটক করা হলে জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদকসহ কয়েকজন সিনিয়র আইনজীবী আসামিকে আত্মসমর্পনের সুযোগ দিতে অনুরোধ করে।

এসময় গোয়েন্দা পুলিশের কয়েকজন সদস্যর সঙ্গে আইনজীবীদের কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে পুলিশ আইনজীবীদের ওপর চড়াও হয়ে লাঠিচার্জ করে। এসময় আইনজীবী সমিতির সহ-সভাপতি আলমগীর হোসেন হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, আসাদ খান মিলন, মাসুদুর রহমান মাসুদ, মো. মুরাদ মুন্সি, আমিনূল ইসলাম পলাশ, জামাল ভূইয়া, পারভেজ রহমান জন ও বজলুর রহমান আহত হন। আহতদের মধ্যে ৭ জনকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপর দিকে এসআই কামাল হোসেন, এএসআই সিদ্দিকুর রহমান, কনস্টেবল হাসান, ডিবি পুলিশের সদস্য রাসেল ও সোহেল আহত হন। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এঘটনায় অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম বাদি হয়ে সহকারী পুলিশ সুপার (নড়িয়া সার্কেল) তানভির হায়দার সাওনসহ ১০ জন পুলিশকে আসামি করে দ্রুত বিচার আদালতে একটি মামলা দায়ের করে।

পুলিশ-আইনজীবী সংঘর্ষ চলাকালে শরীয়তপুরে কর্মরত কয়েকজন সংবাদকর্মী সংবাদ সংগ্রহে জন্য সেখানে গেলে আইনজীবীদের সঙ্গে কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। এতে উত্তেজিত হয়ে কয়েকজন সাংবাদিক আইনজীবীদের বিরুদ্ধে মিছিল বের করেন।

শরীয়তপুর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক সুব্রত কুমার বিশ্বাস বলেন, জাজিরা থানার একজন সাজাপ্রাপ্ত ও ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি কোর্ট চত্বরের আশেপাশে ঘোরাঘুরি করছে খবর পেয়ে গোয়েন্দা পুলিশের সহায়তায় জাজিরা থানা পুলিশ রাস্তা থেকে তাকে আটক করে। এ সময় কয়েকজন আইনজীবী তাকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টাকালে তাদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। পুলিশ তাদের ওপর কোন লাঠিচার্জ করেনি। আইনজীবীদের হামলায় ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

অ্যাডভোকেট মাসুদুর রহমান বলেন, আমার মোয়াক্কেল শাহেন শাহ একটি মামলায় পলাতক ছিল। সে আজ আদালতে আত্মসমর্পন করতে এলে পুলিশ তাকে আমার চেম্বারের সামনে থেকে আটক করে। আমরা সিনিয়র কয়েকজন আইনজীবী আসামিকে আত্মসমর্পনের সুযোগ দিকে অনুরোধ করলে আমাদের ওপর পুলিশ চড়াও হয়। একপর্যায়ে আইনজীবী সমিতির সদস্যসহ বেশ কয়েক আহত হন। তাদের মধ্যে ৭ জনকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শরীয়তপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম বলেন, পুলিশ আইনজীবীদের ওপর হাত তুলেছে। আমাদের আহত করেছে। আমরা আগামী রোববার থেকে সমস্ত বিচারিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকব। আমরা আইনের আশ্রয় নেব। পুলিশি নির্যাতনের বিচার না হলে প্রয়োজনে আমরা প্রধান বিচারপতির কাছে গিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

সহকারী পুলিশ সুপার (নড়িয়া সার্কেল) তানভির হায়দার সাওন বলেন, সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে আটক করলে আইনজীবীরা তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় ডিবি পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে আইনজীবীরা হামলা করে। তবে পুলিশ কোনো লাঠিচার্জ করেনি।