আজকের দিন তারিখ ২৬শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১২ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এশিয়ার ‘সিলিকন ভিলেজ’

এশিয়ার ‘সিলিকন ভিলেজ’


পোস্ট করেছেন: admin | প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২, ২০১৬ , ৭:৪৬ অপরাহ্ণ | বিভাগ: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি


ddaকাগজ অনলাইন ডেস্ক: হাঁটুসমান এক রোবট। তার টলটল মায়াভরা দুই চোখ। রোবটটির কাজ গৃহস্থালির কাজে সাহায্য করা। তবে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট ইং-ওয়েন সাইকে সামনে পেয়ে দুই লাইন গান শুনিয়ে দিল। ছোট ছোট এ রকম চিত্র নিয়েই এশিয়ার সবচেয়ে বড় প্রযুক্তিমেলা কম্পিউটেক্সের এবারের আসর সাজানো হয়েছে। প্রযুক্তির উদ্ভাবনকে প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে কম্পিউটেক্স ২০১৬-এ।
পাঁচ দিনের কম্পিউটেক্স শুরু হয়েছে ৩১ মে। প্রথম দিন দেখানো ছোট সেই রোবটটির নাম জেনবো। তৈরি করেছে আসুস। কণ্ঠ-নিয়ন্ত্রিত এই রোবট লেনদেনের রসিদ যেমন পড়ে শোনাতে পারে, তেমনই ছোটদের গল্প শোনাতেও জুড়ি নেই। আরেক ধাপ এগিয়ে সদ্য নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট সাইকে দুশ্চিন্তায় ফেলে দিয়ে জিজ্ঞেস করে বসল, আপনার কি মনে হয় আমি প্রথম রোবট প্রেসিডেন্ট হতে পারব? ইং-ওয়েন সাই কী ভাবলেন কে জানে, কপালের ভাঁজের বদলে তাঁর মুখের রেখাই জোরালো হলো।
ভার্চ্যুয়াল রিয়ালিটির (ভিআর) ক্রমবর্ধমান বাজার খুব গুরুত্বের সঙ্গে নেওয়া হয়েছে কম্পিউটেক্সে। কারণটা জানিয়েছেন প্রসেসর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এএমডি তাইওয়ানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এল জেড ওয়াং—‘শুরুতে কম্পিউটারের ব্যবহার বেশ মজার ছিল, ভিআর আবার সে আনন্দ ফিরিয়ে আনবে।’
মেলায় বেশ হই-হট্টগোলের মধ্যেই কাটছে তাইওয়ানের আরেক প্রতিষ্ঠান এইচটিসির কর্মীদের। ভাইভ ভিআর হেডসেটে মানুষের আগ্রহ কম ছিল না। এদিকে বাজারে নিজের অবস্থান ফিরিয়ে আনতে যুদ্ধ করছে এসার। আর অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে ভিআরের জন্য বিশেষভাবে তৈরি ‘প্রিডেটর’ সিরিজের কম্পিউটার। ভার্চ্যুয়াল রিয়ালিটির বৈশ্বিক বাজার এ বছর ৫১০ কোটি এবং ২০১৭ সাল নাগাদ তা ১ হাজার ৯০ কোটি ডলারে পৌঁছাবে বলেই বাজার বিশ্লেষকেরা ধারণা। মেলাটি যে তাইওয়ানের, তা ভালো করেই বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে প্রতি পরতে। উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রেসিডেন্ট সাই বলেছিলেন, নতুন সরকার তাইওয়ানকে এশিয়ার ‘সিলিকন ভিলেজ’ হিসেবে গড়ে তুলবে। যেখানে গুরুত্ব পাবে মেধা এবং গবেষণা ও উন্নয়ন।