আজকের দিন তারিখ ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
স্পোর্টস শেষ ষোলোতে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি স্পেন-জাপান

শেষ ষোলোতে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি স্পেন-জাপান


পোস্ট করেছেন: dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ১, ২০২২ , ৪:৪২ অপরাহ্ণ | বিভাগ: স্পোর্টস


দিনের শেষে প্রতিবেদক :  কোস্টারিকাকে ৭-০ গোলে উড়িয়ে শুরু করেছিল স্পেন। জার্মানিকে ২-১ গোলে হারায় জাপান। কাতার বিশ্বকাপে দুর্দান্ত শুরু করা দুই দল ‘ই’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে। দুই দলেরই আছে শেষ ষোলোতে ওঠার সুযোগ, আছে ছিটকে যাওয়ার আশঙ্কাও। বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় আল রায়ানের খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে নামছে  সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ও এশিয়ান জায়ান্ট। পয়েন্ট টেবিলে জাপানের চেয়ে শক্ত অবস্থানে আছে স্পেন। কোস্টারিকাকে ৭-০ গোলে হারানোর পর জার্মানির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে তারা। ৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে স্প্যানিশরা। তিন পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে জাপান ও কোস্টারিকা। বৃহস্পতিবার আরেকটি ড্র করলে শেষ ষোলো নিশ্চিত হবে লুইস এনরিকের দলের। আর জিতলে গ্রুপের শীর্ষস্থান। কিন্তু নকআউটে খেলা নাও হতে পারে স্পেনের, যদি তারা জাপানের কাছে হেরে যায় এবং কোস্টারিকা জার্মানির বিপক্ষে জেতে। তবে কোস্টারিকা-জার্মানি ড্র হলে হেরেও দ্বিতীয় স্থানে থেকে দ্বিতীয় রাউন্ডে যাবে ২০১০ সালের চ্যাম্পিয়নরা। এমনকি তারা হেরে যাওয়ার পর যদি জার্মানি ৮ গোলে না জেতে তাহলেও গ্রুপ বাধা পেরোবে স্পেন। তবে জয়ের জন্যই মাঠে নামবে স্পেন, বললেন এনরিকে, ‘আমরা আমাদের পূর্ণ শক্তি ব্যবহার করবো এবং গ্রুপের শীর্ষে থাকতে জেতার জন্য মাঠে নামবো।’

শেষ ষোলোতে উঠতে জিততে হবে জাপানকেও। কোস্টারিকার কাছে হেরে নকআউটের স্বপ্নে বড় ধাক্কা খায় তারা। স্পেনের বিপক্ষে ড্র করলেও পরের পর্বে ওঠার সম্ভাবনা আছে। সেক্ষেত্রে কোস্টারিকা-জার্মানির ম্যাচটি ড্র হতে হবে, নয়তো বাদ পড়বে সামুরাই ব্লুরা। নিজেদের ইতিহাসে সাত বিশ্বকাপে চারবার শেষ ষোলো খেলা জাপানকে নিয়ে আশাবাদী কোচ হাজিমে মরিয়াসু, ‘আমরা জেতার জন্য যাচ্ছি, আমাদের ভাবনায় শুধু এটাই। জার্মানিকে হারানো মানে যে আমরা স্পেনকেও হারাতে পারবো, তা নয়। দুই দলই বিশ্বকাপ জিতেছে এবং তাদের জন্য আমাদের অনেক শ্রদ্ধা, কিন্তু আমরা জার্মানদের হারিয়েছিলাম।’ ‍ ফুটবল নিয়ে স্পেন ও জাপান মুখোমুখি হয়েছিল একবারই। ২০০১ সালে প্রীতি ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছিল লা রোজারা।