আজকের দিন তারিখ ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
/////হাইলাইটস///// মেসির স্বপ্নপূরণ নাকি এমবাপ্পের ইতিহাস?

মেসির স্বপ্নপূরণ নাকি এমবাপ্পের ইতিহাস?


পোস্ট করেছেন: dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ১৭, ২০২২ , ২:৫৩ অপরাহ্ণ | বিভাগ: /////হাইলাইটস/////


সানি আজাদ : কাতার বিশ্বকাপের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচের ভাগ্য নির্ভর করছে এই দুইজনের উপর। ফাইনালে নিজের প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের লক্ষ্যে আজ মাঠে নামবেন লিওনেল মেসি, আর পরপর দুইবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যে লড়বেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। বয়স মাত্রই ২৩, এর মধ্যেই ফুটবলের সবথেকে মর্যাদাপূর্ণ শিরোপা জেতা হয়ে গেছে কিলিয়ান এমবাপ্পের। সেটিও ৪ বছর আগেই, যখন তিনি টিনেজার ছিলেন। পেলের পর প্রথম টিনেজার হিসেবে বিশ্বকাপ ফাইনালে গোল করার কৃতিত্বও তার। সেই হিসাবে ক্লাব ক্যারিয়ারে যা অর্জন করা যায় তার সবকিছু পেলেও এই এক বিশ্বকাপই অধরা রয়ে গেছে লিওনেল মেসির। ২০১৪ বিশ্বকাপে খুব কাছে গিয়েও ফাইনালে মারিও গোতজের ১১৩ মিনিটের গোলে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল মেসির। এবার কাতারে সেই সোনার হরিণ পাওয়ার জন্য মুখিয়ে আছেন তিনি। কাতার বিশ্বকাপের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচের ভাগ্য নির্ভর করছে এই দুইজনের উপর। মেসি নিজেই নিশ্চিত করেছেন, বিশ্বকাপে এটিই তার শেষ ম্যাচ। ফাইনাল জয়ের মাধ্যমে বিশ্বকাপে নিজের পথচলার সমাপ্তি ঘটাতে পারার মতো অসাধারণ অনুভূতি আর কী হতে পারে! তবে মেসির শেষ বিশ্বকাপ হলেও কিলিয়ান এমবাপ্পের জন্য নিশ্চিতভাবেই নয়।

চোটাঘাত মুক্ত থাকলে সামনের অন্তত দুটি বিশ্বকাপ তো খেলবেনই এই ফ্রেঞ্চ তারকা। কাতার বিশ্বকাপেও যদি চ্যাম্পিয়ন হয় ফ্রান্স, তাহলে সর্বকালের সেরাদের প্রশ্নে মাত্র ২৩ বছর বয়সেই চলে আসবে এমবাপ্পের নামও। শুধু দলের সদস্য হিসেবে নয়, ফ্রান্সের ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ জয়ের পেছনে অন্যতম বড় ভূমিকা ছিল এমবাপ্পের। ৪ গোল করে দলের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন, যার মধ্যে ছিল ফাইনালে দুর্দান্ত এক গোল আর আর্জেন্টিনার বিপক্ষে শেষ ষোলোয় দুই গোল। কাতার বিশ্বকাপে ফ্রান্সের ফাইনালে উঠার পেছনেও সবথেকে বড় ভূমিকা এমবাপ্পেরই। ইতোমধ্যে করে ফেলেছেন ৫ গোল, যা এখন অব্দি টুর্নামেন্ট সর্বোচ্চ। অপরদিকে ২০১৪ বিশ্বকাপে ব্যক্তিগতভাবে অসাধারণ খেলেই আর্জেন্টিনাকে ফাইনালে নিয়ে গিয়েছিলেন লিওনেল মেসি। ৪ গোল করে আর্জেন্টিনার হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার সাথে সাথে ফাইনালে হেরেও টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার গোল্ডেন বল জিতেছিলেন তিনি। আর এবার কাতারে তো নিজের পুরোনো ঝলকই দেখাচ্ছেন মেসি। ৫ গোল করার পাশাপাশি দুর্দান্ত সব পারফরম্যান্স দিয়ে মনে করিয়ে দিচ্ছেন তার সেরা দিনগুলোর কথা। এই মেসিকে থামানো যে ভীষণ কঠিন সেটা প্রতিপক্ষ খুব ভালো করেই জানে। ফাইনালের মহারণে মেসি এবং এমবাপ্পের দিকে তাকিয়ে থাকবে তাদের দল। এই যুদ্ধে যিনি জিতবেন, তার দলই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে যাবে। তাই প্রতিপক্ষও দল চাইবে তাদেরকে থামিয়ে দিতে। যেই জিতুন না কেন, ইতিহাসে নতুন করে লেখা হবে তাদের নাম। আজ বাংলাদেশ সময় রাত ৯ টায় কাতারের লুসাইল স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপ জয়ের লড়াইয়ে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে নামবে ফ্রান্স।