আজকের দিন তারিখ ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সারাবিশ্ব মমতার পরিবারের সম্পত্তি বৃদ্ধি, হলফনামা তলব

মমতার পরিবারের সম্পত্তি বৃদ্ধি, হলফনামা তলব


পোস্ট করেছেন: dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ৬, ২০২২ , ৫:১৮ অপরাহ্ণ | বিভাগ: সারাবিশ্ব


দিনের শেষে ডেস্ক :  পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের পরিবারের সদস্যদের সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলায় সবপক্ষের হলফনামা চাইল কলকাতা হাইকোর্ট। আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে উভয় পক্ষের হলফনামা জমা করতে হবে। মঙ্গলবার এমনই নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব ও বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ।মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে আনন্দবাজার।

মঙ্গলবার আদালতে মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের তরফের আইনজীবী মামলার গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। তাদের দাবি, এই মামলার কোনও গ্রহণযোগ্যতা নেই। অবশ্য মামলাকারীর তরফে আইনজীবী তরুণজ্যোতি তিওয়ারির দাবি, ২০১১ সালের পর থেকে মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের একাধিক সদস্যের সম্পত্তি অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। বিভিন্ন সময়ের সরকারি হলফনামায় তা স্পষ্ট। আবার অনেকক্ষেত্রে সেই সম্পত্তির সঠিক পরিমাণ তারা তুলে ধরেননি। দু’পক্ষের বির্তক শোনার পর সবপক্ষের হলফনামা তলব করল ডিভিশন বেঞ্চ। মামলার বিবাদিপক্ষকে ১১ নভেম্বরের মধ্যে হলফনামা জমার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এর পর, দু’সপ্তাহের মধ্যে পাল্টা হলফনামা দিতে হবে মামলাকারীকে। মামলার পরবর্তী শুনানি ২৮ নভেম্বর।

মামলাকারীর দাবি অনুযায়ী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অত্যন্ত গরিব পরিবার থেকে উঠে এসেছেন। তার ছয় ভাই আছেন। ২০১১ সালের পর থেকে মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের সম্পত্তি অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। কীভাবে এই বৃদ্ধি, তা জানতে চেয়েছেন অরিজিৎ মজুমদার নামে এক ব্যক্তি। তার হয়ে মামলা দায়ের করেছেন বিজেপি নেতা তরুণজ্যোতি তিওয়ারি।

জনস্বার্থ মামলাটিতে আরও বলা হয়েছে, কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইয়ের স্ত্রী প্রার্থী হন। তার পেশ করা হলফনামায় দু’টি কোম্পানির নাম উল্লেখ করা হয়েছিল। তবে একাধিক সম্পত্তির উল্লেখ হয়নি। যেগুলি বিপুল টাকার সম্পত্তি এবং অনেক দামে কেনা হয়েছে বলে অভিযোগ। কীভাবে সম্পত্তির এত পরিমাণ বাড়ল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দায়ের হল মামলা। ইডি, সিবিআই ও আয়কর দপ্তরকে দিয়ে তদন্ত করার আবেদন জানানো হয়েছে মামলায়।

এদিকে মামলার খবর পেয়ে পালটা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। মেয়ো রোডে টিএমসিপির প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠান থেকে তিনি বলেন, শুনলাম, বিজেপি আমার নামে মামলা করেছে। আমি তো গত ১২ বছর ধরে এমপি হিসেবে যে পেনশন পাই, তা-ও নেই না। সাংসদ হওয়ার পরও কোনও দিন বিজনেস ক্লাসে যাত্রা করিনি। মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে আমার প্রাপ্য প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকা, তা-ও নেই না। আমি যেখানে থাকি, সেটাও ঠিকায় ভাড়া। আমার নিজের বলতে কিছুই নেই।

তিনি আরও বলেন, ওগুলো কি আমার সম্পত্তি? আমরা সবাই আলাদা আলাদা পরিবার। সবাই বিয়ে করে আলাদা হয়ে গিয়েছে। কোনও সম্পর্ক নেই কারও সঙ্গে। শুধু উৎসবের সময় সম্পর্ক। তাদের পরবর্তী প্রজন্ম এসেছে। তারা চাকরি-বাকরি করে ঘরদোর বানিয়েছে। একমাত্র মায়ের দায়িত্ব ছিল আমার। আমার তো সব ডকুমেন্ট দেওয়াই আছে।