আজকের দিন তারিখ ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
স্পোর্টস লীড ভারতের বিপক্ষে সাহস যোগাচ্ছে তারুণ্য

ভারতের বিপক্ষে সাহস যোগাচ্ছে তারুণ্য


পোস্ট করেছেন: delwer master | প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২২ , ১১:২৪ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: স্পোর্টস লীড


স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশ, ভারত-দুই দলই টানা দুই জয়ে নিশ্চিত করেছে সেমিফাইনাল। পয়েন্ট সমান হলেও গোল পার্থক্যে বাংলাদেশের চেয়ে (+৯) এগিয়ে ভারত (+১২)। গ্রুপ সেরা হতে তাই আসছে দ্বৈরথে জয়ের বিকল্প নেই সাবিনাদের। ‘বি’ গ্রুপের সেরা হওয়ার সম্ভাবনায় আছে স্বাগতিক নেপাল। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে তাদেরকে এড়াতে চাইছে বাংলাদেশ। এ কারণে ভারতকে হারিয়ে ‘এ’ গ্রুপের সেরা হওয়ার লক্ষ্য দলের। মেয়েদের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে আজ মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত। কাঠমান্ডুর দশরথ স্টেডিয়ামে খেলা শুরু সন্ধ্যা ৬টায়।
মালদ্বীপকে ৯-০ গোলে উড়িয়ে দেওয়ার পর ভারত কোচ সুরেন কুমার ছেত্রি বলেছিলেন, গ্রুপের শেষ ম্যাচে চাপে থাকবে বাংলাদেশ। আর তারুণ্য নির্ভর বাংলাদেশ কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন ও অধিনায়ক সাবিনা খাতুন জানিয়েছেন চাপ নেওয়ার দিন শেষ। ভারতের বিপক্ষে কখনও জেতেনি বাংলাদেশ।

১০ ম্যাচে ২০১৬ সালের আসরে গ্রুপ পর্বে করা ড্রই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ প্রাপ্তি। এই পরিসংখ্যানও বাংলাদেশ কোচ ছোটনের আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরাতে পারছে না একটুও। গতকাল ম্যাচের আগে বাংলাদেশ দলের হেড কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেন, ‘আমি তো মনে করি যে আমাদের মেয়েরা গত দুই ম্যাচে যে ফুটবল খেলেছে, তাতে যেকোনো টিমই আমাদের নিয়ে উল্টো চাপে থাকবে। তবে এ নিয়ে মেয়েরা কোনো আত্মতৃপ্তিতে ভুগছে না। আমরা ভারত ম্যাচেও স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে চাই।’ পাকিস্তান ম্যাচে ডান পায়ে একটু আঘাত পেলেও ভারতের বিপক্ষে খেলার ব্যাপারে আশাবাদী আঁখি খাতুন। ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি দীর্ঘকায় এই ডিফেন্ডারও ভারত ম্যাচের চাপ ইস্যুতে কোচের সঙ্গে সুর মিলিয়ে বলেন, চাপ নেওয়ার কিছু নেই। আমরা বাংলাদেশে যেটা করে এসেছি (প্রস্তুতি), এখানে এসে দুটি ম্যাচ খেলে ফেলেছি, এই দুইটা ম্যাচে যেভাবে খেলেছি, ভারতের বিপক্ষেও সেভাবেই খেলবো। শুধু আমরাই যে চাপে থাকবো তা নয়, ভারতও চাপে থাকবে।’ চলতি সাফে গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে আছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। দুই ম্যাচে পাঁচ গোল করেছেন এই ফরোয়ার্ড। ভারত ম্যাচ নিয়ে তিনি বলেন, ‘ভারত পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে প্রি-ম্যাচ কনফারেন্সেও তারা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ব্যাপারে অতি-আত্মবিশ্বাসের কথা বলেছে। আমরা আমাদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলে যাবো, বাকিটা সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছা। আসলে আমাদের ওরকম চাপ নেওয়ার কিছু নেই। চাপ নেওয়ার দিন শেষ। চাপ নেওয়ার ওই ফুটবল বাংলাদেশ এখন আর খেলে না’। প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপকে ৩-০ গোলে হারালেও ঠিক চেনা ছন্দে ছিলেন না বাংলাদেশের ফরোয়ার্ডরা। গোল মিস করেছেন অনেক। পাকিস্তানের বিপক্ষেও প্রথমার্ধে ৪ গোলে লিড নেয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে মাত্র দুটি গোল করেছেন সাবিনা-কৃষ্ণারা। দুই ম্যাচেই ডজনখানেক গোল মিস করেছে বাংলাদেশ। ভারত ম্যাচে এমনটা করা যাবে না জানিয়ে সাবিনা বলেন, ‘ভারত ম্যাচে সুযোগ যা আসবে সবগুলোই আমাদের কাজে লাগাতে হবে। সুযোগ মিস করলেই পস্তাতে হবে। কোচ অনুশীলনে এই বিষয়টিই বারবার আমাদের মনে করিয়ে দিয়েছেন।’ সতীর্থদের সাহস নিয়ে অভিজ্ঞ এই ফরোয়ার্ড বলেন, ‘আসরের সব দলের মধ্যে আমাদের দলটি বয়সে তরুণ। অন্যদের চেয়ে এদের হয়তো অভিজ্ঞতাও কম। তবে এরা কিন্তু একেবারে ফিট। এটাই ভারত ম্যাচে আমাদের বড় শক্তি।’