আজকের দিন তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, রবিবার, ১৫ ফাল্গুন, ১৪২৭
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থ ও বাণিজ্য বেড়েই চলছে সয়াবিন তেলের দাম, কমেছে সবজির দাম

বেড়েই চলছে সয়াবিন তেলের দাম, কমেছে সবজির দাম


পোস্ট করেছেন: Dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২১ , ১১:৩৮ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: অর্থ ও বাণিজ্য


দিনের শেষে প্রতিবেদক : কিছুতেই যেন ভোজ্যদেল সয়াবিনের লাগাম টেনে ধরা যাচ্ছে না। মাঝে মধ্যেই অস্থির হয়ে উঠছে নিত্যপণ্যের বাজার। সেই ধারাবাহিকতায় লাগামহীন সয়াবিন তেলের দাম। পণ্যের লাগামহীন মূল্যে সাধারণ ক্রেতা দিশেহারা হয়ে পড়ছেন।
সম্প্রতি সময়ে কয়েক ধাপে বেড়েছে তেলের দাম। এবার নতুন করে আবারও তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। নতুন দাম অনুযায়ী প্রতিটি ৫০০ মিলি ভোজ্যতেল বোতলের দাম ৭৫ টাকা, এক লিটারের বোতল ১৪০ টাকা, দুই লিটারের বোতল ২৭০ টাকা, ৫ লিটারের বোতল ৬৫৫ টাকা। থেমে নেই খোলা তেলের বাজারও। বোতলজাত তেলের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে খোলা তেলও। প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৩০ টাক মাসুদ নামের এক ক্রেতা বলেন, আজ এক লিটার সয়াবিন তেল নিয়েছি ১৪০ টাকা দিয়ে। কিছুদিন আগেও এই তেল নিয়েছি ১০০ থেকে ১০৫ টাকায়। বাজার করতে আসলেই দেখা যায় আগের বারের থেকে নতুন করে ১০-১২ টাকা বেড়ে গেছে। খুচরা বাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। হল্যান্ডের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা কেজি। আলুর কেজি ২০ টাকা। ইন্ডিয়ান মসুর ডাল ৮০ টাকা কেজি, দেশি মসুর ডাল ১১০ টাকা কেজি। রসুন ১২০ টাকা থেকে ১৩০ টাকা কেজি, আদা ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। চিকন চাল বলে পরিচিত মিনিকেট। তিন ধরেনর মিনিকেট চাল আছে বাজারে। এসব মিনিকেট চালের দাম ৬২-৬৫ টাকা। আটাশ চাল ৫২ থেকে ৫৪ টাকা, নাজিরশাইল চাল ৬৫-৬৮ টাকা, পাইজাম চাল ৪৮ থেকে ৫০ টাকা কেজি, গুটি স্বর্ণ ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
সবজিতে স্বস্তি : শীত শেষ হতে চলেছে, তবে এখানো বাজারে যথেষ্ট পরিমাণে রয়েছে শীতকাল সবজি। শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) রায়েরবাজার, ঝিগাতলার কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা যায়, লম্বা বেগুনের কজি ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকা, গোল বেগুনের কেজি ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকা, শিমের কেজি ৩০ টাকা থেকে ৪০ টাকা, টমেটোর কেজি ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা, কাঁচা মরিচের কেজি ৬০ টাকা থেকে ৭০ টাকা, ঢেঁড়স ৮০ টাকা কেজি, মুলার কেজি ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকা, পেঁপের কেজি ২৫ টাকা, প্রতিটি লাউ ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকা, ফুলকপি ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকা, বাঁধা কপি ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকা, শালগম ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকা, করোলা ৫০ টাকা, গাজর ২৫ থেকে ৩৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। নাগালের মধ্যে সবজি পাওয়া গেলেও ব্যতিক্রম লেবু। ঢাকার বাজারে প্রতি হালি লেবুর বিক্রি হয়েছে ৫০ টাকা থেকে ৬০ টাকা। প্রতিটি লেবুর দাম পড়ছে ১৩ থেকে ১৫ টাকা।
বয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকা, কক মুরগি ২০০ টাকা কেজি, গরুর মাংস ৫৫০ টাকা, খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। পাকিস্তানি মুরগির জোড়া বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা। ডিমের ডজন ৮৫ থেকে ৯০ টাকা।