আজকের দিন তারিখ ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সারাদেশ নতুন বই কেজি দরে বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক

নতুন বই কেজি দরে বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক


পোস্ট করেছেন: Dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ২৫, ২০২৩ , ৪:১৯ অপরাহ্ণ | বিভাগ: সারাদেশ


গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : কাশিয়ানীর এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিনামূল্যে সরকারি বই কেজি দরে বিক্রি করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গত সোমবার মাহমুদপুর ইউনিয়নের শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে গ্রামপুলিশ পাঠিয়ে বইগুলো জব্দ করেন ইউএনও। বইগুলোর মধ্যে রয়েছে- মাধ্যমিক স্তরের বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ বিজ্ঞান, বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচিতি, ইসলাম ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, ক্যারিয়ার শিক্ষা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, চারুপাঠ, কৃষি শিক্ষা, আনন্দপাঠ, গার্হস্থ্য শিক্ষ। জানা গেছে, শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জগবন্ধু বিশ্বাস গত সোমবার বেলা ২টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের ছুটি দিয়ে দেন। এরপর গোপনে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড প্রণীত ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির বিভিন্ন বিষয়ের সরকারি বই ৩০ টাকা কেজি দরে দুই ফেরিওয়ালার কাছে বিক্রি করে দেন। স্থানীয়রা সরকারি বই ফেরিওয়ালাদের কাছে দেখতে পেয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে বিক্রির বিষয়টি জানতে পারেন।
ফেরিওয়ালা কাওছার শেখ জানান, শিক্ষক জগবন্ধু বিশ্বাসের কাছ থেকে ৩০ টাকা কেজি দরে ৩০ কেজি বই কিনেছেন তিনি। স্থানীয় ইমদাদুল হক বলেন, ‘আমি জমির কাজ করে দুপুরে বাড়ি ফেরার পথে স্কুলের সামনে ভাঙাড়ি বোঝাই ফেরিওয়ালাদের একটি ভ্যান ও দু’জন লোককে দেখতে পাই। তাঁদের জিজ্ঞাসা করি, এখানে কী করেন? জবাবে তাঁরা জানান, এই স্কুল থেকে কিছু বই কিনেছেন। দেখতে চাইলে উপস্থিত লোকজনের সামনে বইগুলো দেখান। বইগুলোর গায়ে ২০২২ ও ২০২৩ শিক্ষাবর্ষ লেখা রয়েছে। পরে তাঁদের আটক করি এবং ৯৯৯ নম্বরে কল করে বিষয়টি জানাই। পরে ইউএনওর নির্দেশে গ্রামপুলিশের কাছে বইগুলো হস্তান্তর করি।’ জানতে চাইলে বই বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রধান শিক্ষক জগবন্ধু বিশ্বাস। তিনি বলেন, ‘আমি কোনো বই বিক্রি করিনি। একটি মহল আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।’ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহফুজা বেগম বলেন, প্রধান শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। তিন দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে। এরপর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।