আজকের দিন তারিখ ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সারাবিশ্ব কান্দাহার বিমানবন্দরে তালেবানের রকেট হামলা

কান্দাহার বিমানবন্দরে তালেবানের রকেট হামলা


পোস্ট করেছেন: dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ১, ২০২১ , ২:০৪ অপরাহ্ণ | বিভাগ: সারাবিশ্ব


দিনের শেষে ডেস্ক : আফগানিস্তানের কান্দাহার বিমানবন্দরে কমপক্ষে তিনটি রকেট হামলা চালিয়েছে তালিবান। শনিবার রাতে এ হামলায় দু’টি রকেট গিয়ে রানওয়েতে আঘাত হানে। এতে বিমানবন্দরের রানওয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ হামলার জেরে কান্দাহার বিমানবন্দরের সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়। আফগান কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা এএফপি এ খবর জানিয়েছে।কান্দাহার বিমানবন্দরের প্রধান মাসুদ পশতুন বলেন, ‘গত রাতে তিনটি রকেট হামলা হয় বিমানবন্দরে। এরমধ্যে দুটি রানওয়েতে আঘাত হেনেছে।’ তিনি বলেন, ‘এ কারণে সব ফ্লাইট বন্ধ রাখা হয়েছে।’মাসুদ পশতুন জানান, রানওয়ে সংস্কারের কাজ চলছে। রোববার রাতের দিকে বিমান পরিষেবা আবার শুরু হতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। কাবুলে বেসামরিক বিমান পরিষেবার এক কর্মকর্তাও রকেট হামলার খবরটি নিশ্চিত করেছেন।

গত কয়েক দিন ধরে আফগানিস্তানের নতুন নতুন এলাকা দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তালিবান। ইতোমধ্যেই তারা দেশটির অনেক জেলাশহর নিজেদের দখলে নিয়েছে। অনেক স্থানে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তাদের সংঘর্ষের খবর পাওয়া যাচ্ছে। আফগানিস্তানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কান্দাহার দখল করতে গত কয়েকদিন ধরেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তালেবান। প্রাদেশিক রাজধানী শহরটির আশপাশ অবরোধ করে রেখেছে তালেবানরা। এবার বিমানবন্দরে রকেট হামলা চালালো তারা। তালিবানদের ঠেকাতে এ বিমানবন্দর দিয়েই আফগান সেনার রসদ ও অস্ত্র আসছিল।

কান্দাহারে তালেবান ও সরকারি বাহিনীর লড়াইয়ে বহু মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। ছবি: বিবিসি

গুরুত্বপূর্ণ তিন শহরে লড়াই : কান্দাহার ছাড়াও দক্ষিণ ও পশ্চিম আফগানিস্তানের আরও দুই শহরের দখল নিতে সরকারি বাহিনীর সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে তালেবান। রোববার বিবিসির খবরে বলা হয়, হেরাত ও লস্ককর গোহ শহরের বিভিন্ন অংশে প্রবেশ করেছে তালেবান যোদ্ধারা। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনাদের পুরোপুরি সরিয়ে নেওয়া হবে এই মাসেই। এ প্রেক্ষাপটে নতুন করে যেসব অঞ্চল তালেবানরা দখল করেছে, তারমধ্যে এ দুই প্রদেশের বিস্তির্ণ গ্রামাঞ্চলও রয়েছে। বলা হচ্ছে, কান্দাহারসহ এ দুটি শহর সরকারি বাহিনীর হাতছাড়া হলে আফগানিস্তানে আরও বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠবে তালেবানরা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটি বলছে, মৌলবাদী ইসলামপন্থী যোদ্ধারা ইতোমধ্যে আফগানিস্তানের অর্ধেকের বেশি স্থান নিজেদের দখলে নিয়েছে। এ ছাড়া ইরান ও পাকিস্তানের সঙ্গে দুটি সীমান্ত স্থলবন্দরও তালেবানরা দখলে নিয়েছে।