আজকের দিন তারিখ ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
স্পোর্টস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অনেক কঠিন : শামীম

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অনেক কঠিন : শামীম


পোস্ট করেছেন: Dinersheshey | প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ২৬, ২০২১ , ১১:৫০ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: স্পোর্টস


দিনের শেষে ডেস্ক : টিভি-টুর্নামেন্ট দিয়েই ক্রিকেটে শামীম হোসেনের যাত্রা শুরু। সেই তরুণটিই এখন জাতীয় দলের ক্রিকেটার। শুক্রবার হারারে স্পোর্টস ক্লাব গ্রাউন্ডে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয় তার। শুধু কি তাই, টানা দুই ম্যাচে দুর্দান্ত দুটি ইনিংস খেলে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন সবাইকে।
অবশ্য এই তাক লাগানো ইনিংসের একটিতে হতাশা নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছিল। আগের দিন ২৯ রানের বিস্ফোরক ব্যাটিং করলেও দলকে জেতাতে পারেননি। কিন্তু রবিবার ১৫ বলে ৩১ রানের বিধ্বংসী ইনিংসে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছেন চাঁদপুর থেকে উঠে আসা এই তরুণ। ম্যাচ শেষে সংবাদ মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতা জানিয়েছেন।
দুই ম্যাচ খেলা শামীম বুঝে গেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কতটা কঠিন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অনেক কঠিন। এতদিন অনূর্ধ্ব-১৯ খেলেছি বা ক্লাব খেলেছি। তার চেয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অনেক কঠিন তা বুঝতে পেরেছি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খারাপ বল কম পাওয়া যায়। বেশিরভাগ সময়ই ভালো বল আসে, সেগুলোই সাহস করে মারতে হয়। এই দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হয়।’
অভিষেক ম্যাচে শামীম ২৯ রান করলেও দল জিততে পারেনি। এই তরুণ জানালেন, আগের ম্যাচের এই ব্যর্থতাই তাকে ভালো করতে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে, ‘আল্লাহর রহমতে অনেক ভালো লাগছে। গত ম্যাচে শেষ করতে পারিনি, তাই মনে রেখেছিলাম পরের ম্যাচে সুযোগ পেলে আমার লক্ষ্য থাকবে শেষ করে আসা। সেই সুযোগটা পেয়ে আমি সফলও হয়েছি। আমার টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে অভিষেক হয়েছে। এটা আমার জন্য খুব ভালো হয়েছে। এই ফরম্যাট দিয়েই আমি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে মানিয়ে নিবো।’
আগের ম্যাচের মতো এই ম্যাচটিতেও হোঁচট খেতে পারতো বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ৫ উইকেটে জিতেছে সফরকারীরা। যদিও শামীমের কখনোই মনে হয়নি, দল হারতে পারে, ‘যখন সৌম্য-রিয়াদ ভাই ব্যাটিং করছিল, সবাই আমরা পজিটিভ ছিলাম। আমি যখন ড্রেসিংরুমে খেলা দেখছিলাম, তখন মনে ছিল যে আজ জিতবো। যেভাবেই হোক আমরা জিতবো ইনশাআল্লাহ।’
মাহমুদউল্লাহ ও শামীম মিলে পঞ্চম উইকেটে ১৯ বলে ৩৭ রানের জুটি গড়েছেন। এই সময়টাতে অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছিলেন শামীমকে। কী ছিল সেটা? এমন প্রশ্নের জবাবে শামীম বলেছেন, ‘রিয়াদ ভাই আমাকে বলছিল যে, ওভারে ১০ করে আসলে ম্যাচটা সহজে চলে আসবে। একটা বাউন্ডারি বা একটা সিক্স আসলেই হবে। আমি সেই পরিকল্পনা ধরে খেলেছি।’